মৃত রোগীর পরিবারের হাতে গুরুতর জখম এনআরএসের ইন্টার্ন ডোমজুড়ের পরিবহ

সৌম্যজিৎ চক্রবর্তী: রোগীমৃত্যুকে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এনআরএস হাসপাতাল চত্ত্বর। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে অত্যন্ত আশঙ্কাজনক অবস্থায় নিউরোসায়েন্সে চিকিৎসাধীন ওই হাসপাতালেরই ইন্টার্ন চিকিৎসক হাওড়ার পরিবহ মুখার্জি। পেশায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ডোমজুড় ফোকোর দোকানের কাছে ষষ্ঠীতলার বাসিন্দা শুভাঙ্কুর (খোকন) মুখার্জির পুত্র পরিবহ। সূত্রের খবর, পরিবহের ডিপ্রেসড ফ্রন্টাল লোব ফ্র্যাকচার হয়েছে। অর্থাৎ মাথার খুলি ফেটে মাথার ভিতরে ঢুকে যাওয়া বা কপালের হাড় ভেঙে মাথার ভিতরে ঢুকে যাওয়া।

জানা গেছে, চিকিৎসায় গাফিলতিতে রোগী মৃত্যুর অভিযোগ তুলে সোমবার রাতে ডাক্তারদের ওপর চড়াও হয় ওই মৃত রোগীর পরিবার। অভিযোগ, মৃত রোগীর পরিবারের লোকজন চিকিৎসকদের বেধড়ক মারধর করে। জুনিয়র ডাক্তারদের লক্ষ্য করে ইঁট ছোঁড়ে মৃতের পরিবার। তখনই মাথা ফাটে ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিবহের। গুরুতর সঙ্কটজনক অবস্থায় তাঁকে নিইরোসায়েন্সে ভর্তি করে চিকিৎসা চলছে।

পরিবহ বরাবরই মেধাবী ছাত্র।ডোমজুড়ের ঝাঁপরদহ ডিউক স্কুলের পরে চিকিৎসাশাস্ত্র পড়তে যান এনআরএস মেডিকেল কলেজে। সর্বভারতীয় মেডিকেল প্রবেশিকা পরীক্ষায় ১৮০ র‍্যাঙ্ক করেন তিনি।এখন এনআরএস হাসপাতালেরই ইন্টার্ন চিকিৎসক তিনি।তাঁর পরিচিতরা বলেন,অত্যন্ত সদালাপী ও মিষ্টভাষী পরিবহ।তাঁর এমন দুর্ঘটনায় হতভম্ব সকলেই।পরিবহের পাশে দাঁড়িয়েছেন চিকিৎসক সমাজ।ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় (ফাইট ফর পরিবহ)হ্যাশট্যাগে জনমত গড়ে তোলার চেষ্টা হচ্ছে।পাশাপাশি এই ডাক্তার নিগ্রহের প্রতিবাদে এনআরএসে পরিষেবাও বন্ধ রেখেছেন চিকিৎসকরা। (ছবি- সংগৃহিত)

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।